লোগো ডিজাইনের প্রতিযোগিতা করতে চান? তাহলে এই বিষয়গুলো জেনে নিন

লোগো ডিজাইনের প্রতিযোগিতায় কিছু বিবেচ্য বিষয় জেনে নিন ;

Logo Design



 লোগো ডিজাইন একটি গ্রাফিক্স এর কাজ।  গ্রাফিক্স ডিজাইন এর মধ্যে লোগো ডিজাইনের ব্যাপক প্রতিযোগিতা লক্ষ করা যায়। লোগো ডিজাইনের প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হলে চাই অসাধারণ কিছু করার জ্ঞান,  অন্যের চেয়ে অবশ্যই আলাদা কিছু করা, ক্রিয়েটিভ কিছু করা, সৃজনশীলতা।  এসব বিষয়গুলো থাকলে আপনি অবশ্যই একজন ভালো মানের ডিজাইনার হতে পারবেন। ক্লায়েন্ট এর মনের মতো করে কাজটি করে দিতে আপনাকে সদা প্রস্তুত থাকা আবশ্যক। 

আমরা সবাই জানি প্রত্যেক জিনিসের ২ টা দিক থাকে। আসলেই প্রতিযোগিতায় অনেকগুলো ধরন ও বৈশিষ্ট্য থাকে। আর এগুলোর অনেক সুবিধার দিক যেমন লক্ষ করা যায়, তেমনি অসুবিধার দিকও আছে। আপনার জন্য যেটি সহজ,  সেটি অন্যের জন্য কঠিন লাগতে পারে। তাই একেকজন এর জন্য একেকটি মানানসই। এসব বিষয়গুলো ভেবেচিন্তে যেগুলো আপনার জন্য মানানসই সেটি বিবেচনা করে বেছে নিয়ে প্রতিযোগিতায় আসবেন,  তাহলে অবশ্যই ভালো করতে পারবেন,  সফল হবেন।

প্রতিযোগিতার অনেকগুলো সুবিধা রয়েছে। যেমন ;
★আপনি বিড করে কাজ না পাওয়া পর্যন্ত আপনি কখনো নিজেকে যোগ্য হিসেবে গড়ে তুলতে পারবেন না।  তাই প্রতিযোগিতা করুন।
★ ফ্রীল্যান্সিং জব এর সাইটগুলোতে সবসময়ই প্রতিযোগিতাকে বেশি প্রাধান্য দেয়া হয়।  তাই প্রতিযোগিতায় আসুন।
★আপনি প্রতিযোগিতায় ভালো কাজ করে নিজেকে প্রমাণ করতে পারবেন। এবং আপনি সবার মাঝে নিজেকে তুলে ধরতে পারবেন। তাই প্রতিযোগিতায় আসুন।
★ আপনি বিড করা কাজের মাধ্যমে যে অর্থ পাবেন তা থেকে আপনি যদি প্রতিযোগিতা করুন তাহলে বেশী পুরস্কারের অর্থমূল্য পাবেন।  তাই প্রতিযোগিতা আসুন।

আপনারা যারা নতুন তারা অনেকে হয়তো ভাবতেছেন প্রতিযোগিতা কি? প্রতিযোগিতা হলো কন্টেষ্ট করা৷।

এখন আপনাদেরকে কিছু কন্টেষ্ট বা প্রতিযোগিতা সম্পর্কে বলবো ;


ওপেন কন্টেষ্ট বনাম হিডেন কন্টেষ্ট ;

ওপেন কন্টেষ্ট হচ্ছে মুক্ত কন্টেষ্ট।  এর মাধ্যমে আপনি যে ডিজাইনটি বা পোর্টোফোলিও একাউন্ট এ জমা করে রাখবেন সেটি অন্য প্রতিযোগিরা দেখতে পাবে। এছাড়া এর মাধ্যমে আপনার কাজকে ক্লায়েন্ট যে রেটিং পয়েন্ট দিয়েছে সেটি জানা যায়। ফলে ক্লায়েন্ট কোন লোগোটি অধিক পছন্দ করেছে সেটিও স্পষ্টভাবে জানা যায়৷ এর মাধ্যমে ক্লায়েন্ট এর পছন্দ-অপছন্দের বিষয়গুলো স্পষ্টভাবে জানা যায়। ফলে তার সাথে কাজ করা সহজ হয়। আবার আরেকটি বিষয় হচ্ছে, প্রতিযোগিতায় যদি কেউ এতোটাই ভালো ডিজাইন জমা দেয়,  ফলে তার সাথে প্রতিযোগিতা করা সম্ভব হয়ে উঠে না  ; তাহলে আপনারা সেই প্রতিযোগিতা বাদ দিয়ে অন্য প্রতিযোগিতার দিকে মনোযোগ দিতে পারেন।  
আবার হিডেন কন্টেষ্টকে সিলড কন্টেষ্ট বলা হয়। হিডেন কন্টেষ্ট এর মাধ্যমে অন্য প্রতিযোগির ডিজাইন যেটি জমা দিয়েছে সেটি অন্য প্রতিযোগিরা দেখতে পারে না৷। অবশ্য কোনো কোনো সাইটে যে রেটিং পয়েন্ট দেয়া হয় সেটি জানা যায় না, আবার অনেক সাইট রয়েছে যেমন ( ফ্রিল্যান্সার সাইট)  এ রেটিং জানার সুযোগ থাকে না।  এখানে আরেকটি বিষয় হচ্ছে কোনো ডিজাইনার যদি অন্যের ডিজাইন নকল করেন তাহলে সেটি জানার সুযোগ থাকে ,  কিন্তু হিডেন কন্টেষ্ট এ সেটির সুযোগ থাকে না । এর ফলে অনেকেই স্টক কন্টেষ্ট আর্ট ব্যবহারের দিকে বেশী জোক দেয়।  কিন্তু একটা কথা মনে রাখবেন,  স্টক আর্ট ব্যবহার করলে একদিন না একদিন আপনাকে ধরা পড়তেই হবে। 
[বি;দ্র;  আপনি যদি নিজস্ব ভালো মানের আইডিয়া অনুযায়ী লোগো বানাতে পারেন তাহলে আপনি হিডেন কন্টেষ্ট এ মনোযোগ দিন,  অন্যথায় আপনি যদি আইডিয়াই খুঁজে না পান তাহলে আপনি অবশ্যই ওপেন কন্টেষ্ট এ অন্যদের করা ডিজাইনগুলো দেখে একটা ভালো ধারণা নিন ]

গ্যারান্টিড কন্টেষ্ট বনাম নন গ্যারান্টেড কন্টেষ্ট ;

গ্যারান্টিড কন্টেষ্ট এর মধ্যে ক্লায়েন্ট ডিজাইনার এর করা কাজগুলোর মধ্য থেকে একটি কাজ নিবেনই। ক্লায়েন্ট একটি কাজ নিতে বাধ্য থাকবেই।  কেননা ক্লায়েন্ট আগেই সাইটে পেমেন্ট করে থাকে ।  আর ক্লায়েন্ট যদি কোনোভাবেই কাজটি পছন্দ না করে না নিতে পারে তাহলে সাইটের অন্যান্য সেরা ফ্রীল্যান্সার এর মধ্যে পেমেন্টগুলো ভাগাভাগি করে দেয়া হয়। 
আবার নন গ্যারান্টেড কন্টেষ্ট হলো ডিজাইনার যে কাজটি করে দিবে ক্লায়েন্ট সেটি নাও নিতে পারে। ক্লায়েন্ট এর মনের মতো না হলে সেটি নিবে না। 
[ বি;দ্র; আপনি অবশ্যই গ্যারান্টেড কন্টেষ্ট এ অংশ নিবেন, কখনো নন গ্যারান্টেড কন্টেষ্ট এ অংশ নিবেন না ]

কম টাকার প্রতিযোগিতা  বনাম বেশী টাকার প্রতিযোগিতা  ;

স্বভাবতই প্রত্যেক ডিজাইনার এর বেশী পরিমান পুরস্কারে পুরস্কারের প্রতি বেশী আগ্রহ থাকে।। একেক সাইটে একেক রকমের পুরস্কার এর ঘোষণা করা হয়ে থাকে। তাই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীরা এর থেকে বেশী পুরস্কারের ঘোষণা করে থাকেন। আপনি যদি কাজটি সঠিকভাবে করতে পারেন তাহলেই কেবলমাত্র অংশগ্রহণ করুন। কেননা প্রত্যেক ক্লায়েন্টই তার মনের মতো করে কাজটি করিয়ে নিতে চায়।  আর আপনি যদি তার মনের মতো করে কাজটি করতে না পান তাহলে অংশগ্রহণ কইরেন না প্রতিযোগিতাটিতে। 

শর্তযুক্ত প্রতিযোগিতা;

এটি হচ্ছে ক্লায়েন্ট আপনাকে একটা কাজ করে দিতে বলবে এবং সাথে আরেকটি কাজও করে দিতে বলবে।  উদাহরণ হিসেবে বলা যায়,  ক্লায়েন্ট আপনাকে একটা কোম্পানির লোগো বানিয়ে দিতে বললো এবং তার সাথে আপনাকে আরেকটি বিজনেস কাড এর কাজও করে দিতে বলবে।  আর এরকম প্রতিযোগিতাগুলো শর্তযুক্ত প্রতিযোগিতা।  
[বি;দ্র; এরকম কাজ করা অনেকেরই বিরক্তিকর মনে হয়।  আর এভাবেই কাজ করার চেয়ে প্রতিযোগিতায় অংশ না নিয়ে তো তাহলে ক্লায়েন্ট যখন কাজ পোস্ট করবো,  সেটিতে বিড করাই ভালো। ]

 আশা করি আমি আপনাদেরকে কিছু হলেও জানাতে ও বুঝাতে পেরেছি।  সাথেই থাকুন।  এরকম আরো পোস্ট পেতে আমাদের ওয়েবসাইট এর সাথেই থাকুন। 
ধন্যবাদ সবাইকে। 

3 comments:

Featured post

বিশ্বকাপে ফিক্সিং রোধকল্পে নতুন ব্যবস্থা আইসিসির

ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯ কিছুদিনের মধ্যেই শুরু হতে যাচ্ছে৷   ফিক্সিং নামক ভয়ানক পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে আইসিসি একটি নতুন পদক্ষেপ নিয়েছে।। প...

Powered by Blogger.